প্রচ্ছদ নবীনগরের সংবাদ, স্লাইডার

নবীনগরে স্বামীর লাথিতে অন্তঃসত্বা স্ত্রীর মৃত্যু

মোঃ দেলোয়ার হোসেন | শুক্রবার, ১২ জানুয়ারি ২০১৮ | পড়া হয়েছে 244 বার

এ কেমন স্বামী? প্রায় দেড় বছর আগে প্রথম স্ত্রী শিল্পী দেবনাথ মারা যায় বৈদ্যুতিক শক লেগে। রেখে যান এক ছেলে ও এক মেয়ে। ছেলে মেয়ের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে স্বামী স্বপন পুনরায় বিয়ে করে নিয়ে আসে পুতুল দেবনাথকে। ভালই চলছিল স্বপনের দ্বিতীয় স্ত্রী পুতুলের সাথে তার নতুন সংসার। এরই মধ্যে হঠাৎ তাদের পারিবারিক কলহ সৃষ্টি হয়। সেই কলহের ইতি টানতে অন্তঃসত্বা পুতুল ঢলে পড়ে মৃত্যুর কোলে।
ঘটনাটি ঘটেছে, গত সোমবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বড়িকান্দি গ্রামে। অভিযোগ উঠে পাষন্ড স্বামীর লাথির আঘাতে পুতুল দেব নাথ (২৩) নামে এক অন্তঃস্বত্বা স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় চেয়ারম্যান ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে তাড়াতাড়ি করে লাশ মাটিচাপা দেওয়ায় এলাকাবাসির মনে সন্দেহ সৃষ্টি হয়। সুত্র জানায়, বড়িকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার পারভেজ হারুদ ও ইউপি সদস্য মোঃ গোলাপ মেম্বার সমঝোতা সালিশের নামে এক লাখ ত্রিশ হাজার টাকায় রফাদফা করেন।

নিহত পুতুল দেবনাথ পাশর্^বর্তী বাঞ্ছারামপুর উপজেলার রুপসদী গ্রামের হিরু দেবনাথের মেয়ে। গত এক বছর পূর্বে বড়িকান্দি ইউনিয়নের স্বপন দেবনাথের সাথে তার বিয়ে হয়। যা স্বপন দেবনাথে দ্বিতীয় বিয়ে। স্বপনের মৃত. প্রথম স্ত্রী শিল্পী দেবনাথের দুই সন্তান নিয়ে পুতুলের সংসারে কলহের সৃষ্টি হয়। এই নিয়ে ঘটনার দিন অন্তঃসত্বা স্ত্রী পুতুল এর সাথে ঝগড়া হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে স্বপন পুতুলের পেটে লাথি মারে। সাথে সাথে পুতুল অজ্ঞান হলে তাকে দ্রæত স্থানীয় প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে দ্রæত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। ঢাকা মেডিকেল হাসপাতলে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয় ।

এ ব্যাপারে মেম্বার মো. গোলাপ বলেন, এটি স্বাভাবিক মৃত্যু। তাদের মাঝে পারিবারিক কলহ ছিল এই নিয়ে তাদের মাঝে কয়েকদিন আগে ঝগড়া হয়। ওই দিন স্বপনের স্ত্রীর ডেলিভারীর স্বাভাবিক ব্যাথা উঠলে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখান থেকে তাকে ঢাকা পাঠানো হয়। সেখান থেকে ফেরত আসার সময় তার মৃত্যু হয়। মেয়ের পরিবারের দাবীর প্রেক্ষিতে বিয়ের সময়ের লেনদেনের বিষয়টি বিবেচনায় এনে এই টাকা রায় করা হয়।

এ ব্যাপারে বড়িকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার পাভেজ হারুদ এক লক্ষ ত্রিশ হাজার টাকায় মীমাংসার কথা স্বীকার করে বলেন, বিয়ের সময় যা স্বর্ণালংকার ও নগদ ত্রিশ হাজার টাকা দিয়েছিল সেই টাকা ফেরত দেয়ার জন্য সালিশী বৈঠকে এ রায় দেয়া হয়েছে। পুতুল দেবনাথের স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। স্বামীর লাথিতে তার মৃত্যু হয়েছে এ বিষয়ে আমি অবগত নই।

এ ব্যাপারে নবীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আসলাম সিকদার জানান, এ ঘটনায় কোন লিখিত অভিযোগ আমার কাছে আসেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত স্বাপেক্ষে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

Comments

comments

Visitor counter

Visits since 2018

Your IP: 54.198.170.159

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১