প্রচ্ছদ খোলা কলাম, শিরোনাম, স্লাইডার

ছাত্রলীগ ও শৃঙ্খলা নিয়ে কিছু কথা

মোঃ মোবারক হোসেন | শনিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | পড়া হয়েছে 579 বার

ছাত্রলীগ ও শৃঙ্খলা নিয়ে কিছু কথা

স্বাধীনতার মহান স্থপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে প্রতিষ্ঠিত হয় ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। বাংলা ও বাঙালির স্বাধিকার ও স্বাধীনতা অর্জনের দৃঢ় প্রত্যয়ে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশনায় সময়ের প্রয়োজনে ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি জন্ম লাভ করে ছাত্রলীগ। জন্মলগ্ন থেকে আজ পর্যন্ত গৌরবময় ঐতিহ্য ও ইতিহাসকে ধারণ করার মাধ্যমে একটি সোনালি আগামীর প্রত্যাশায় এগিয়ে চলেছে এই সংগঠন। এশিয়া উপমহাদেশের সর্ববৃহৎ ছাত্র সংগঠন হিসেবে ছাত্রলীগ সারাবিশ্বে পরিচিতি লাভ করেছে। ছাত্রলীগ নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন, “ছাত্রলীগের ইতিহাস বাঙালির ইতিহাস, ছাত্রলীগের ইতিহাস স্বাধীনতার ইতিহাস”। বঙ্গবন্ধুর সেই উক্তির যথার্থতার প্রমাণ পাওয়া যায় ছাত্রলীগের স্বর্ণোজ্জল ইতিহাসের দিকে তাকালেই। ১৯৪৮ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে বাঙালি জাতির প্রতিটি যৌক্তিক ও ন্যায্য আন্দোলন সংগ্রামের সাথে কালের সাক্ষী হয়ে জড়িয়ে আছে ছাত্রলীগ। ৫২ ‘ভাষা আন্দোলন, ৬২’ শিক্ষা আন্দোলন, ৬৬’ছয় দফা, ৬৯’গণঅভ্যুত্থান, ৭১’মহান মুক্তিযুদ্ধ, ৯০’সৈরাচারবিরোধী আন্দোলন সহ সকল প্রগতিশীল ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনে অবিস্বরণীয় ভূমিকা রেখেছেন এই ছাত্রলীগ। বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে নেতৃত্ব দিতে গিয়ে শহীদ হয়েছেন অসংখ্য ছাত্রলীগ নেতাকর্মী। বাংলাদেশের সোনালী ইতিহাসের সাথে জড়িয়ে আছে ছাত্রলীগের ইতিহাস। ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই একটি সুশৃঙ্খল সংগঠন হিসেবে অদ্যবধি সর্বমহলে পরিচিত। দেশের বিভিন্ন প্রাকৃতিক দূর্যোগ ও বড় ধরনের জনদূর্ভোগের সময় সাধারণ মানুষের পাশে অতন্দ্র প্রহরীর মত কাজ করে চলেছে ছাত্রলীগ। ছাত্রলীগের পূর্বের সেই ইতিহাস ও ঐতিহ্য আমাদের বর্তমান প্রজন্মের প্রতিটি ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে বুকে ধারণ করতে হবে। মহান স্বাধীনতার চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে লালন করে এগিয়ে যেতে হবে প্রতিটি ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের। বর্তমানে কিছু অশুভ শক্তি ছাত্রলীগের সেই সোনালী অর্জন ও ইতিহাসকে বিনষ্ট করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। তারা বিভিন্ন কায়দায় ছাত্রলীগ সেজে অনুপ্রবেশের মাধ্যমে তাদের নিজস্ব কর্মকান্ডের দ্বারা ছাত্রলীগকে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। এদেরকে চিহ্নিত করে আমাদের সজাগ দৃষ্টি রাখা অত্যাবশ্যক হয়ে পড়েছে। প্রতিটি মানুষ ও জাতির উন্নতি নির্ভর করে তার সুশৃঙ্খল আচরণের মাধ্যমে। বর্তমানে আমাদের কিছু ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে সবচে বেশি অভাব হলো শৃঙ্খলার। শৃঙ্খলা ছাড়া কোন জাতি সামনের দিকে অগ্রসর হতে পারেনা। একজন ছাত্রলীগ কর্মীকে অবশ্যই নিয়মানুবর্তিতা ও সুশৃঙ্খল জীবন যাপন করতে হবে। জানতে হবে বাঙালি, স্বাধীনতা ও ছাত্রলীগের সঠিক গৌরবময় ইতিহাস। তবেই আমরা রক্ষা করতে পারব আমাদের ছাত্রলীগের সোনালী গৌরবদীপ্ত ইতিহাস। ছাত্রজীবনে শৃঙ্খলা ও নিয়মানুবর্তিতার প্রয়োজন সর্বাধিক। একজন পরিচ্ছন্ন ও গ্রহণযোগ্য সুন্দর চরিত্রের মানুষ হয়ে গড়ে উঠার উপযুক্ত সময় হলো ছাত্রজীবন। প্রিয় ছাত্রলীগ ভাইয়েরা আসুন আমরা সবাই মিলে শপথ করি আগামী দিনে সুশৃঙ্খল জাতি গঠনে আমরা নিজে সুশৃঙ্খল হয়ে অপরকে উৎসাহ প্রদানের মাধ্যমে ছাত্রলীগের মূলনীতি “শিক্ষা-শান্তি-প্রগতির”ধারক বাহক হয়ে শিক্ষা, শান্তি ও প্রগতিশীল একটি সমাজ ও রাষ্ট্র বিনির্মানে সহায়তা করি।
লেখক—-
মোঃ মোবারক হোসেন
সাবেক সদস্য ও সভাপতি পদপ্রার্থী
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ
নবীনগর সরকারি কলেজ শাখা।

Comments

comments

Visitor counter

Visits since 2018

Your IP: 3.93.75.242

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০